দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলেও ইস্টবেঙ্গল পিছিয়ে ৮ পয়েন্টে

কাশীনাথ ভট্টাচার্য ইস্টবেঙ্গল - ১ ইন্ডিয়ান অ্যারোজ – ০ (খাইমে ৪৮) ষষ্ঠ থেকে একলাফে দ্বিতীয়! লাভ অবশ্য হল না বিশেষ। দিনের শেষে এক ম্যাচ বেশি খেলে চেন্নাই সিটি এফসি এখন এগিয়ে আট পয়েন্টে! রিয়েল কাশ্মীর এবং চার্চিল ব্রাদার্সের পয়েন্টও ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে সমানই ছিল, ১২ ম্যাচে ২২। এমন পরিস্থিতিতে, সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের নিয়ম - প্রথমে দেখতে হবে পরস্পরের

আজ শারজায় ইতিহাসের হাতছানি, বাঙালি প্রণয়ের নেতৃত্বে?

কাশীনাথ ভট্টাচার্য কলকাতা, ১৪ জানুয়ারি ২০১৯ শারজা মানেই চেতন শর্মার শেষ বলে জাভেদ মিয়াঁদাদের সেই ছক্কা! ইতিহাস বলছে, অস্ট্রেলেশিয়া কাপের সেই ফাইনাল হয়েছিল ১৮ এপ্রিল, ১৯৮৬। মাঝে ৩২ বছর ৯ মাস প্রায়। সুনীল ছেত্রীরা কি পারবেন শারজার দুঃসহ স্মৃতি চিরতরে ভুলিয়ে দিতে, সোমবার? মাঠ আলাদা। শারজার ক্রিকেট স্টেডিয়াম যেখানে ক্রিকেটার্স বেনিফিট ফান্ড সিরিজ (সিবিএফএস) অনুষ্ঠিত হত আবদুল

শঙ্করলালকেই কৃতিত্ব দিলেন সোনি

কাশীনাথ ভট্টাচার্য কলকাতা, ১২ জানুয়ারি ২০১৯ মোহনবাগান - ১  নেরোকা – ০ (সোনি ৭৮) পরপর দু-ম্যাচে ছয় পয়েন্ট এবং একটিও গোল না-খাওয়া। নতুন কোচ এসে পাল্টেই দিলেন মোহনবাগানকে! সোনি নর্দে অবশ্য পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন, ‘কৃতিত্ব শঙ্করলালেরই (চক্রবর্তী)। দলটা শঙ্করই তৈরি করে গিয়েছেন। আমাদের, ফুটবলারদের ব্যর্থতা, চেষ্টা করেও কোচকে আমরা এই জয়গুলো এনে দিতে পারিনি তখন।’

সুযোগ নষ্টের প্রদর্শনী, হার সুনীলদের

কাশীনাথ ভট্টাচার্য কলকাতা, ১০ জানুয়ারি ২০১৯ ভারত – ০ আমিরশাহি - ২             (মুবারক ৪২, মাবখৌত ৮৮) আকাশ থেকে মাটিতে? একেবারেই নয়! আবুধাবির জায়েদ স্পোর্টস সিটি স্টেডিয়ামে আয়োজক সংযুক্ত আরব আমিরশাহির বিরুদ্ধে সবই করলেন ভারতীয় ফুটবলাররা, পেলেন না শুধু গোলের দেখা। গোটা ছয়েক সুযোগ তৈরি করেও গোল করতে না-পারা অবশ্যই ব্যর্থতা, নিঃসন্দেহে। কিন্তু, ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ৭৯ আমিরশাহির বিরুদ্ধে আক্রমণে গিয়েই গোলমুখ

‘সুনীল’ আকাশে ভারতীয় ফুটবলকে নিয়ে উড়লেন ‘ছেত্রী’!

কাশীনাথ ভট্টাচার্য কলকাতা, ৬ জানুয়ারি ২০১৯ থাইল্যান্ড - ১     ভারত – ৪ (দাংদা ৩৩ )     (সুনীল ২৭ পে, ৪৭, অনিরুধ ৬৮, জেজে ৮০) প্রতিদিন সূর্য ওঠে তোমায় দেখবে বলে, সুনীল ছেত্রী! কবীর সুমনের গানের কলি ধার করতে ইচ্ছে হয় আবার, চৌঁত্রিশের ছেত্রী যখন সুনীল আকাশে নিয়ে যান অভাগা ভারতীয় ফুটবলকে। সম্ভাবনা তৈরি হয় এক অসম্ভব স্বপ্নিল উড়ানের,

বাছাইপর্ব থেকে কীভাবে আবুধাবিতে সুনীলরা

কাশীনাথ ভট্টাচার্য কলকাতা, ৫ জানুয়ারি ২০১৯ অবহেলা করেছি প্রচুর। ট্রোলও হল অনেক। আসুন না, কয়েকটা দিন একটু বেঁচে নেওয়া যাক সুনীল ছেত্রী, জেজে লালপেখলুয়া, গুরপ্রীত সিং সাঁধু, সন্দেশ ঝিঙ্গনদের জগতে! ওঁরা ততটা পরিচিত নন ভারতীয় ক্রীড়ামানসে। সুনীল ছেত্রী ব্যতিক্রম। অন্তর্জাল-প্রজন্ম আন্দোলিত হয় তাঁকে ঘিরেও। তাঁর টুইট হাজারে হাজারে রিটুইট হয়। তাঁর আবেদন শুনে মাঠ ভরাতে আসেন মানুষ।

ফিরে দেখা – এশিয়ান কাপে ভারত

কাশীনাথ ভট্টাচার্য কলকাতা, ৫ জানুয়ারি ২০১৯ এশিয়ান কাপ মহাদেশীয় প্রতিযোগিতা। আন্তর্জাতিক ফুটবলের সঙ্গে যোগাযোগ এখন বহু ভারতীয় ফুটবলপ্রেমীর। তাদের বোঝার সুবিধার জন্য বলা যেতে পারে, ইউরোপ মহাদেশে যেমন ইউরো হয়, দক্ষিণ আমেরিকায় যেমন কোপা আমেরিকা, আফ্রিকায় যেমন নেশনস কাপ, তেমনই এশিয়ায় এশিয়ান কাপ। মহাদেশীয় কাপগুলোর মধ্যে সবচেয়ে পুরনো কোপা আমেরিকা। তারপরই এশিয়ান কাপ, যা শুরু হয়েছিল

কাশীনাথ ভট্টাচার্য : নবম ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের এবার প্রথম ড্র!

ইস্টবেঙ্গল - ১    রিয়েল কাশ্মীর – ১(জবি ৫৭)        (চুলোভা, আত্মঘাতী ৪৬) স্কটিশ কোচ ডেভিড রবার্টসন দায়িত্বে। বোঝা সহজ, লিগ তালিকায় চোখ ফেললে। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে, ১০ ম্যাচে গোল খেয়েছে মাত্র ছয়। ইস্টবেঙ্গল সেখানে ৯ ম্যাচে খেয়েছে ১২ গোল! রিয়েল কাশ্মীরের আসল শক্তি ওই তথ্যে। রক্ষণ আঁটোসাটো।আই লিগের কোনও দলের খেলার সময় রক্ষণে