৬ ম্যাচ নির্বাসিত জবি, জরিমানা ১ লক্ষ

Spread the love

রাইট স্পোর্টস ওয়েব ডেস্ক

কলকাতা, ৫ মার্চ ২০১৯

থুতু কাণ্ডে ৬ ম্যাচ নির্বাসিত হলেন ইস্টবেঙ্গলের ফুটবলার জবি জাস্টিন। সঙ্গে এক লক্ষ টাকা জরিমানাও ধার্য করল এআইএফএফ-এর শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি। ফলে, এই মরসুমে আর খেলতে পারছেন না জবি। আই লিগে শেষ দুটি ম্যাচে যথাক্রমে রিয়েল কাশ্মীর এবং মিনার্ভা পাঞ্জাব এফসি-র বিরুদ্ধে খেলেননি। খেলতে পারবেন না আগামী ৯ মার্চ শেষ ম্যাচে গোকুলম এফসি-র বিরুদ্ধেও, যে-ম্যাচ জিততে পারলে এবং চেন্নাই সিটি এফসি পয়েন্ট হারালে ইস্টবেঙ্গল চ্যাম্পিয়নও হতে পারে। তারপর সুপার কাপ, যেখানে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে খেলবে সব দলই। অর্থাৎ যদি সুপার কাপের ফাইনালে পৌঁছয় ইস্টবেঙ্গল, খেলার সুযোগ থাকল জবির কাছে। ইস্টবেঙ্গল অবশ্য এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আবেদন করবে, জানিয়েছে লালহলুদ কর্তৃপক্ষ।

একই শাস্তি হল যাঁর দিকে থুতু ছিটিয়েছিলেন জবি, আইজল এফসি-র সেই করিম ওমোলাজারও। তাঁকেও ৬ ম্যাচের জন্য নির্বাসিত করল এআইএফএফ, সঙ্গে এক লক্ষ টাকা জরিমানা। গোকুলম এফসি-র গিলেরমো বাতাতা নির্বাসিত হলেন এক বছরের জন্য, শিলং লাজং ম্যাচে রেফারির গায়ে থুতু ছিটিয়েছিলেন বলে। ফলে, ৯ মার্চ ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে আই লিগের শেষ ম্যাচে স্বাভাবিকভাবেই খেলতে পারবেন না তিনি। এআইএফএফ-এর শৃঙ্খলাভঙ্গের নিয়মে (আর্টিকল ৫০ সি) পরিষ্কার জানানো আছে, ম্যাচ অফিসিয়ালের গায়ে থুতু ছেটালে ১২ মাসের নির্বাসন।

বাজাজের জয়, মিনার্ভা-কাশ্মীর ম্যাচ রিপ্লে!

সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থা সিদ্ধান্ত নিল গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রিয়েল কাশ্মীর বনাম মিনার্ভা পাঞ্জাব এফসি ম্যাচ রিপ্লে হবে। কাশ্মীরে ওই ম্যাচ খেলতে যায়নি মিনার্ভা, নিরাপত্তাহীনতার কারণ দেখিয়ে। মিনার্ভা পাঞ্জাবের মালিক রনজিৎ বাজাজ জানিয়েছিলেন, ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় ৪০ জন ভারতীয় সেনার মৃত্যুর পরবর্তী পরিস্থিতিতে তাঁর দলের বিদেশি ফুটবলারদের কাশ্মীরে যেতে মানা করেছিল সংশ্লিষ্ট দেশগুলির ভারতীয় দূতাবাস। রিয়েল কাশ্মীরের তরফে অবশ্য দাবি করা হয়েছিল, সেই সময় খেলার মতো পরিস্থিতি ছিল। কিন্তু তারপরেই ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে খেলা কাশ্মীর থেকে নামিয়ে আনা হয়েছিল দিল্লিতে।

মঙ্গলবার দিল্লিতে সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থার বৈঠকের পর সংবাদ মাধ্যমকে পাঠানো প্রেস রিলিজে জানানো হয়েছে, কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে কমিটি মনে করছে, এই মুহূর্তে কাশ্মীরে ম্যাচ আয়োজনের পরিস্থিতি নেই। তাই এই অনভিপ্রেত পরিস্থিতি এবং দুই দলের ম্যাচটি খেলার আগ্রহ  মাথায় রেখে, কমিটি মনে করছে, আগামী ৬ মার্চের পর যে কোনও দিন এবং যে কোনও জায়গায় এই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হতে পারে। ওয়াকিবহাল মহলের খবর, ম্যাচ সম্ভবত ১২ মার্চ হবে। দিল্লিতে যেমন ইস্টবেঙ্গল খেলেছিল রিয়েল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে কোনও সমস্যা ছাড়াই, আবারও দিল্লিতেই খেলতে হবে কাশ্মীরকে। যেহেতু রিয়েল কাশ্মীর এবং মিনার্ভা পাঞ্জাব, দুটি দলই খেতাবি লড়াইতে নেই, তাই ৯ মার্চ খেতাব নিশ্চিত হয়ে যাওয়ার পর এই ম্যাচ খেলা হবে, তালিকায় দুটি দলের সর্বশেষ পরিস্থিতি দেখে নেওয়ার জন্য।

গতবারের আই লিগ চ্যাম্পিয়ন মিনার্ভা পাঞ্জাবের মালিক রনজিৎ বাজাজ এই যুদ্ধে জিতলেন এআইএফএফ-এর বিরুদ্ধে। আদালতে যাওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন, গিয়েওছিলেন। আদালতের নির্দেশ অনুসারে অপেক্ষা করছিলেন আই লিগ কমিটির সিদ্ধান্তের জন্য। আপাতত আর আদালতে যাওয়ার প্রয়োজন রইল না বাজাজের।

জবি জাস্টিনের ছবি এআইএফএফ ওয়েবসাইট থেকে

Leave a Reply