পদত্যাগ করলেন স্টিফেন কনস্টান্টাইন

Spread the love

রাইট স্পোর্টস ওয়েব ডেস্ক

কলকাতা, ১৪ জানুয়ারি ২০১৯

ভারতের জাতীয় ফুটবল দলের কোচের চাকরি ছেড়ে দিলেন স্টিফেন কনস্টান্টাইন। এএফসি এশিয়ান কাপে বাহরিনের কাছে ৯১ মিনিটের পেনাল্টি-গোলে হেরে বিদায় নেওয়ার পরই।

২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে দ্বিতীয়বার ভারতের জাতীয় দলের কোচ হয়ে এসেছিলেন যখন, ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ভারত ছিল ১৭৩তম স্থানে। ছেড়ে যাওয়ার সময় ভারত ৯৭। এএফসি কাপের মূলপর্বে খেলেছে এবং গ্রুপ লিগের শেষ ম্যাচের চার মিনিট আগে পর্যন্তও প্রথম ১৬য় যাওয়া প্রায় নিশ্চিত দেখাচ্ছিল। সব শেষ করে দেয় পেনাল্টি, বাহরিন ম্যাচে তাঁরই বেছে নেওয়া অধিনায়ক প্রণয় হালদারের ভুলে।

ম্যাচের আগে সাংবাদিক সম্মেলনে স্টিফেন বলেছিলেন, তিনি এবং তাঁর দল জানে না, কী করে ড্রয়ের জন্য খেলতে হয়। ভারত খেলবে জেতার জন্যই। কিন্তু, বাহরিন ম্যাচে দেখা গেল, বিশেষত দ্বিতীয়ার্ধে, ভারতের সবাই মিলে নেমে এসে রক্ষণে মন দিয়েছেন। কোনও রকমে গোল বাঁচানোর সেই খেলা যা আগে দেখা যেত এবং যা একেবারেই দেখা যায়নি প্রথম দুই ম্যাচে থাইল্যান্ড ও সংযুক্ত আরব আমিরশাহির বিরুদ্ধে। গোল বাঁচানোর খেলায় নামলে গোলই খেতে হয়, ফুটবলের বহু-পুরনো সত্য। যদি তিনি নির্দেশ দিয়ে থাকেন, তাঁর ভুল কৌশল অবশ্যই। আর, তিনি যদি এমন নির্দেশ না দিয়ে থাকেন, দলের ওপর তাঁর নিয়ন্ত্রণ নিয়ে প্রশ্ন উঠবেই। ৫৬ বছরের ইংরেজ স্টিফেন প্রথমেই জানিয়ে দিলেন, সরে দাঁড়াচ্ছেন।

এআইএফএফ-এর সচিব কুশল দাস জানিয়েছেন, যদিও সরকারিভাবে কোনও কথা হয়নি স্টিফেনের সঙ্গে, তবুও সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থা তাঁর সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাচ্ছে এবং কৃতজ্ঞতার সঙ্গেই মনে রাখছে ভারতীয় ফুটবলে তাঁর অবদানের কথা।

https://twitter.com/IndianFootball/status/1084894856650997760

ইতিহাস লিখতে চেয়েছিলেন ভারতীয় ফুটবল দলকে নিয়ে। আত্মবিশ্বাসী ছিলেন, পারবেন। বারবারই বলেছিলেন, দায়িত্ব নিয়েছিলেন যখন, এএফসি এশিয়ান কাপের মূলপর্বের যোগ্যতার্জন করাই লক্ষ্য ছিল। সেই সময় ফুটবলাররা প্রথমে সেই লক্ষ্যের কথা শুনে অবাক হয়েছিলেন। পরে, কোচের আস্থার মর্যাদা দিয়ে পৌঁছেছিলেন আবুধাবিতে। সেখানেও থাইল্যান্ডকে দ্বিতীয়ার্ধে দুরন্ত ফুটবল খেলে ৪-১ উড়িয়ে দেওয়ার পর সুবর্ণ সুযোগ এসেছিল নকআউটে যাওয়ার। আয়োজক দেশের বিরুদ্ধে সুযোগ তৈরি করেও গোল নষ্টের কারণে হেরে পিছিয়ে গেলেও, বাহরিনের বিরুদ্ধে অন্তত এক পয়েন্ট এনে দিতে পারত ভারতীয় ফুটবলেতিহাসে নতুন মোড়। কিন্তু, ৯০ মিনিটে পেনাল্টি এবং ভারতের আশায় জলাঞ্জলি, অন্য ম্যাচে আয়োজক ইউএই এবং থাইল্যান্ডের খেলা ১-১ হওয়ায়। ভারতকে হেরেও নকআউটে যেতে হলে থাইল্যান্ডকে হারতেই হত।

কাছে এসেও ইতিহাস লিখতে না-পারার ব্যর্থতার দায় নিয়ে সরে গেলেন স্টিফেন, রাতেই।

Leave a Reply