চেন্নাইতে ইস্টবেঙ্গলের মহারণ

Spread the love

রাইট স্পোর্টস ওয়েব ডেস্ক

কলকাতা, ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

লিগ তালিকা বলছে, প্রথম আর ষষ্ঠ মুখোমুখি। কিন্তু, পয়েন্টের পার্থক্য পাঁচ। এবং,ষষ্ঠ স্থানে-থাকা দল খেলেছে একটি ম্যাচ কম!

আই লিগ এখন এমনই। প্রথম ছয় দলেরই সম্ভাবনা আছে খেতাব জয়ের। যে দিন রিয়েল কাশ্মীরের কাছে হেরে মোহনবাগানের কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী ইস্তফা দিয়েছিলেন, যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে কাশ্মীরের কোচ জানিয়েছিলেন, আই লিগ জয়ের ‘ম্যাজিক-পয়েন্ট’ হতে পারে ৩৬। চেন্নাই সিটি এফসি-র এখন ১১ ম্যাচে ২৪, ইস্টবেঙ্গলের ১০ ম্যাচে ১৯। দুটি দল শুধু পৌঁছতেই পারে না, ৩৬-এর বেশি পয়েন্টও তুলতেই পারে বাকি ম্যাচগুলি থেকে।

যেহেতু পিছিয়ে, ইস্টবেঙ্গলের আজ মহারণ নেহরু স্টেডিয়ামে। পয়েন্ট তালিকায় নিজেদের তুলে আনতে মাঠে নামবে ইস্টবেঙ্গল, ব্যবধান কমাতে আগ্রহী শীর্ষে-থাকা দলের সঙ্গে। চেন্নাইয়ের কাজ ঘরের মাঠে শীর্ষস্থান ধরে রাখা, পারলে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে। আর সেই কাজে দুটি দলই এখন তাকিয়ে স্পেনীয়দের দিকে!

চেন্নাই সিটি এফসি-কে সবার ওপরে তুলে এনেছেন পেদ্রো মানজি, নেস্তর খেসুস এবং সান্দ্রো। দলের ২৫ গোলের মধ্যে ২০ গোলই এই ত্রয়ীর! ইস্টবেঙ্গলে এখন নেই এনরিকে এসকেদা। কিন্তু, খাইমে সানতোস কোলাদো এসে বদলে দিয়েছিলেন, তোনি দোবালে-কে সই করিয়ে দলকে আরও সচল করতে চেয়েছেন স্পেনীয় কোচ আলেখান্দ্রো গার্সিয়া। লড়াই সরাসরি স্পেনীয়দেরই।

ঘরের মাঠে এই ম্যাচে ১-২ হেরেছিল ইস্টবেঙ্গল। শুরু হয়েছিল পরপর তিন ম্যাচ হারের গল্প, যেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে কলকাতার ক্লাব। তবু, ঘরের মাঠে চেন্নাইকে হারানো কি সম্ভব?

ইস্টবেঙ্গলের কোচ সাংবাদিক সম্মেলনে জানিয়েছেন, ‘অবশ্যই সম্ভব। খুবই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। তবুও বলব, এই ম্যাচ হেরে গেলে আমাদের দুনিয়া উল্টে যাবে না। এই মুহূর্তে আমরা শুধু হাতের ম্যাচ নিয়েই ভাবছি, নতুন ফুটবলাররাও এসেছে। চেন্নাই সিটির রথ থামিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী।’ স্পেনীয়দের সঙ্গে তাঁকে এই আত্মবিশ্বাস এনে দিচ্ছে জবি জাস্টিন এবং লালদানমাউইয়া রালতের দুর্দান্ত ফর্ম।

চেন্নাই শুরুর আট ম্যাচে হারের মুখ দেখেনি। একটিই ম্যাচ হেরেছে, রিয়েল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে। তারপর আবার দুটি ম্যাচে শিলং লাজং এবং গোকুলমের বিরুদ্ধে জিতে নিশ্চিত করেছে শীর্ষে-থাকা। কোচ আকবর নওয়াজ অবশ্য মনে করছেন, ‘ঘরের মাঠে খেলা মানেই সুবিধা যেমন নয়, অসুবিধাও নেই। প্রত্যেক কোচের দলকে খেলানোর ধরন আলাদা, যা ঠিক হয় বিপক্ষের খেলার ধরন মাথায় রেখেও। আমাদের চেষ্টা প্রতি ম্যাচে আরও ভাল খেলার, উন্নতি করার। বেশ ভাল ফুটবলাররা আছে দলে, বিপক্ষের কথা ভেবে প্রথম দল বেছে নেওয়া হবে। আর, এই মুহূর্তে আমাদের তো হারানোর কিছু নেই। তাই মাঠে সেরাটা দেওয়া আর লড়াই উপভোগ করাই আমাদের লক্ষ্য।’

সোমবার বিকেল পাঁচটায় আপাতত এবারের আই লিগের সবচেয়ে উত্তেজক ম্যাচের সম্ভাবনা, খাতায়-কলমে!

Leave a Reply