নতুন ক্লাবে পুরনো চ্যালেঞ্জ খালিদের!

Spread the love

রাইট স্পোর্টস ওয়েব ডেস্ক

কলকাতা, ৭ জানুয়ারি ২০১৯

যে-কোচের কাছে শেষ ডার্বিতে ০-২ হেরেছিলেন, ২০১৮ সালের ২১ জানুয়ারি, আগামী ২৭ জানুয়ারি ২০১৯ সেই কোচের আসনে বসে আগের ক্লাবকে হারানোর চেষ্টাই করবেন খালিদ জামিল!

মোহনবাগানে কোচ হয়ে এলেন মুম্বইবাসী খালিদ। গত মরসুমে ছিলেন চিরশত্রু ইস্টবেঙ্গল শিবিরে। বসবেন এখন শঙ্করলাল চক্রবর্তীর ছেড়ে-যাওয়া চেয়ারে।

রিয়েল কাশ্মীরের কাছে হেরে পদত্যাগ করেছিলেন শঙ্করলাল, রবিবার ম্যাচের পর। সেই রাতেই মোহনবাগান শিবির থেকে সরকারিভাবে জানানো হয়েছিল, শঙ্করলালের ইস্তফা গৃহীত হচ্ছে। রবিবার রাতে এবং সোমবার সকালে কথার পর, অত্যন্ত দ্রুতগতিতে, সরকারিভাবেই মোহনবাগানের দায়িত্ব দেওয়া হল খালিদকে, ২০১৬-১৭ মরসুমে আইজল এফসি-কে আই লিগ দিয়ে সংবাদের শিরোনামে উঠে এসেছিলেন যিনি।

১১-ক্লাবের আই লিগে খালিদ পাবেন ৯ ম্যাচ। ষষ্ঠ স্থানে আছে মোহনবাগান এখন, ১১ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে। দল দেখে নিতে পারলেও মনের মতো করে সাজিয়ে নেওয়ার সুযোগ নেই। প্রথম অনুশীলনের পরের দিন, ৯ জানুয়ারি মিনার্ভা এফসি এবং ১২ জানুয়ারি নেরোকা এফসি-র বিরুদ্ধে খেলা। ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে ফিরতি ডার্বি ২৭ জানুয়ারি। তার আগে অবশ্য দু-সপ্তাহ সময় পাবেন খালিদ।

মোহনবাগানের তরফে সরকারি মেল-এ জানানো হয়েছে, বাকি মরসুমের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে খালিদকে। গতবার ইস্টবেঙ্গলকে আই লিগে চ্যাম্পিয়ন করতে না পারলেও, শেষ দিন পর্যন্ত, খুব অল্প হলেও, সম্ভাবনা ছিল ইস্টবেঙ্গলের। সুপার কাপের ফাইনালেও পৌঁছেছিলেন খালিদ। যদিও ইস্টবেঙ্গল তাঁকে রাখেনি নতুন মরসুমে।

আটমাস পর কলকাতাতেই ফিরলেন, বিপক্ষ শিবিরে। আইজলকে চ্যাম্পিয়ন করার পর কলকাতায় নিজেকে প্রমাণ করতে এসেছিলেন, যা পারেননি ইস্টবেঙ্গলে। এবার খালিদের কাছে পুরনো চ্যালেঞ্জ নতুন ক্লাবে। ‘এখনও অনেকগুলো ম্যাচ বাকি। ফিরে না আসার কোনও কারণ নেই। সবার সঙ্গে কথা বলি, দেখা হোক প্র্যাকটিসে। মনে হয় ভালই হবে,’ জানিয়েছেন খালিদ।

ডার্বিতে তাঁর রেকর্ড একেবারেই ভাল ছিল না ইস্টবেঙ্গলে। তিন ম্যাচে একটি ড্র কলকাতা লিগে, আই লিগে দুবারই হার। শিবির বদলে রেকর্ড বদলাবে?

Leave a Reply