হটস্টার এবং জিও টিভিতে বাকি সব ম্যাচ, জানাল এআইএফএফ

Spread the love

রাইট স্পোর্টস ওয়েব ডেস্ক

কলকাতা, ৩ জানুয়ারি ২০১৯

রনজিৎ বাজাজ উত্তর চেয়েছিলেন ৫ জানুয়ারির মধ্যে। সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থা বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রেস রিলিজে জানিয়ে দিল, আই লিগের যে ম্যাচগুলো টেলিভিশনে সরাসরি দেখানো হবে না সেই ম্যাচগুলো দেখা যাবে হটস্টার এবং জিও টিভি-তে!

এআইএফএফ-এর সচিব কুশল দাস জানিয়েছেন, ‘হিরো আই লিগের ম্যাচগুলো ভক্তরা দেখতে না পেলে খারাপই হত। তাই আমাদের ব্যবসায়িক সঙ্গী ফুটবল স্পোর্টস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড-এর (এফএসডিএল) সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, অনলাইনে বাকি সব ম্যাচই দেখা যাবে। ধারাভাষ্য শোনা যাবে, দেখা যাবে রিপ্লে এবং হাইলাইটও।’ আগামিকাল শুক্রবার (৪ জানুয়ারি) নেরোকা এফসি বনাম শিলং লাজংয়ের ম্যাচ থেকে শুরু হবে অনলাইন লাইভ স্ট্রিমিং, দুপুর দুটো থেকে।

হিরো আই লিগের সিইও সুনন্দ ধর বলেছেন, ‘সব ম্যাচ দেখানোর কথা ছিল। তাই সব ম্যাচের লাইভ স্ট্রিমিং হবে শুনে নিশ্চিতভাবেই খুশি হবেন ফুটবল ভক্তরা। অনলাইনে তাঁরা নিজেদের প্রিয় দলের খেলা দেখতে পারবেন এখন।’

বিতর্ক শুরু হয়েছিল স্টার স্পোর্টস কর্তৃপক্ষের বিজ্ঞপ্তিতে। আই লিগের ফিরতি পর্বে ৩০ ম্যাচ সরাসরি দেখানো হবে টেলিভিশনে, জানানোর পর। দেখা গিয়েছিল, গতবারের চ্যাম্পিয়ন মিনার্ভা এফসি-র মাত্র একটিই ম্যাচ জায়গা পেয়েছে সেই তালিকায়। ফুঁসে উঠেছিলেন মিনার্ভা-মালিক রনজিৎ বাজাজ। ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগান, চার্চিল ব্রাদার্স এবং ইন্ডিয়ান অ্যারোজ ছাড়া বাকি সাতটি দলের মালিকদের নিয়ে সংগঠন তৈরি করতে চেয়েছিলেন। শেষে রিয়েল কাশ্মীরও সরে গিয়েছিল বলে, বাজাজের সঙ্গে ছিলেন আরও পাঁচ ক্লাবের মালিকরা। তাঁরা একযোগে এআইএফএফ-কে চিঠি দিয়ে জানিয়েছিল, লিগের শুরুতে সব ম্যাচ দেখানোর কথা হয়েছিল যখন, মরসুমের মাঝপথে এভাবে সরে আসাটা তাঁদের সমর্থক এবং স্পনসরদের কাছে বঞ্চনা। সেই চিঠিতেই তাঁরা জানিয়েছিলেন, সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থা যদি ৫ জানুয়ারির মধ্যে ব্যবস্থা না নেয়, দরকারে তাঁরা সিএএস এবং ফিফার কাছে সুবিচার চাইতে যাবেন।

যদিও টেলিভিশনে দেখানো হবে না, অনলাইন দেখানো হলে অন্তত ম্যাচ চলাকালীন কোনও বিতর্কিত সিদ্ধান্তের ভিডিও-ফুটেজ পাওয়া নিয়ে সমস্যা হওয়ার কথা নয়। তবে, নিশ্চিতভাবেই মানা হচ্ছে না সমমানের এবং সমসংখ্যক ক্যামেরা দিয়ে সম্প্রচারের বাজাজ-দাবি!

Leave a Reply